কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করবেন – How to verify YouTube Channel

ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার জন্য  অবশ্যই আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল প্রয়োজন। যদি না থাকে তবে জেনেনিন কিভাবে মোবাইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হয়। আজকে আমরা কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করবেন সম্পর্কে জানব।

Youtube Channel create করার মূল লক্ষ্য হল ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করা। কিন্তু ভিডিওতে যত বেশি ভিজিটর আসবে তত বেশি ইনকাম হবে,আর এই ভিজিটরদের ভিডিও দেখার জন্য আকর্ষিত করার জন্য ভিডিওতে একটি আকর্ষণীয় Custom Thumbnail ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু ইউটিউব ভিডিও তে কাস্টম থাম্বনেইল এর ব্যবহার করার আগে আপনাকে ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করতে হবে। যদি চ্যানেল ভেরিফাই করা না থাকে তবে কাস্টম থাম্বনেইল এর ব্যবহার করতে পারবেন না। তাই প্রথমে Youtube channel verify করে নেওয়া উচিৎ।তাই আজকে আমরা কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করবেন – How to verify YouTube Channel সম্পর্কে জানব।।

How to verify YouTube Channel

যদি আপনি নতুন হয়ে থাকেন এবং জানতে চান কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করতে হয়। তবে এই পোস্টটি সম্পুর্ণ পড়ুন।

আমরা সকলেই জানি ইউটিউব বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় videos sharing platform. Youtube channel create করার পর আমাদের প্রথম কাজ হল নিজের মতো করে ইউটিউবের সেটিং করা। আর ইউটিউব চ্যানেল সেটিং করতে পারবেন না যতক্ষণ আপনি চ্যানেল ভেরিফাই করেননি।

আজকের এই টিউটোরিয়ালে আমরা দুটো বিষয় জানব, সেগুলো হল –

১.          ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার সুবিধা।

২.         এবং ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার নিয়ম।

ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার সুবিধাঃ

ভেরিফাই করা ইউটিউব এর এক জরুরি বিষয়। চ্যানেল ভেরিফাই না করলে Monetization এর মতো features গুলো enable করতে পারবেন না। কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন আবেদন করবেন (মোবাইল দিয়ে) তা জানতে ক্লিক করুন।  কারণ চ্যানেল ভেরিফাই করার পরেই ইউটিউবের বিভিন্ন ফিয়েচার গুলো চালু করতে পারবেন।

চ্যানেল ভেরিফাই করার সুবিধা গুলো নিম্নে তুলে ধরা হল –

১.          যদি ইউটিউব একাউন্ট ভেরিফাই করা থাকে, তবে ইউটিউবের নজরে আপনার আইডি ফেক হিসেবে গন্য করা হয় না এবং ইউটিউব এর সঙ্গে পার্টনারশিপ  হয়ে যায়।

২.         ভেরিফাই করা না থাকলে ১৫ মিনিটের বেশি লম্বা ভিডিও আপলোড করা যাবে না। কিন্তু ভেরিফাই করার পরে যে কোন long video uploads করতে পারবেন।

৩.         চ্যানেল ভেরিফাই করা থাকলে Copyright Claim করতে পারবেন।

৪.         চ্যানেল ভেরিফাই করার পরে আপনি ইউটিউবে live streaming video করতে পারবেন।

৫.         যদি আপনি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করতে চান, তবে আপনাকে ইউটিউব এর Video monetization enable করতে হবে। আর এই ভিডিও মনিটাইজেশন চালু করার জন্য ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করতে হবে. কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন আবেদন করবেন (মোবাইল দিয়ে) তা জানতে ক্লিক করুন।

৬.         চ্যানেল ভেরিফাই করার পরে ইউটিউব এর Fan Funding feature ব্যবহার করতে পারবেন। তবে youtube video monetization enable করার পরেই Fan Funding পরিসেবা চালু করতে পারবেন।

Kivabe Youtube channel verify korte hoy – ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার নিয়ম

এখন আমরা আমাদের মূল আলোচ্য বিষয় ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার নিয়ম গুলো ধাপে ধাপে আলোচনা করবো । Youtube channel verification করার জন্য নিচে দেওয়া ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।

ধাপ ১: Log in

প্রথমে নিজের ইমেইল আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ইউটিউবে লগ ইন করুন।

ধাপ ২: Click in Profile photo and YouTube Studio

ইমেইল আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার পরে ডান দিকে একেবারে উপরে “Profile Photo” তে ক্লিক করলে,

বেশ কিছু অপশন আসবে তার মধ্যে “YouTube Studio” অপশনে ক্লিক করুন। নিচে দেওয়া ছবির মত।

ধাপ ৩: Click on Setting

Youtube studio অপশনে ক্লিক করার পরে নিচে দেওয়া photo এর মতো একটি পেজ ওপেন হবে। এখানে “Setting” অপশনে ক্লিক করুন।

ধাপ ৪: Setting

Setting অপশনে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে ইউটিউব চ্যানেলের সেটিং পেজ খুলে যাবে উপরে দেওয়া ছবির মতো।

ছবিতে  যেভাবে নাম্বারিং করা হয়েছে, সেই ভাবে আপনি ও কাজ করুন।

প্রথমে “Channel” অপশনে ক্লিক করুন। [1]

তারপর “Features Eligibility” অপশনে ক্লিক করুন। [2]

Next “Eligible” option e click করুন। [3]

সর্বশেষ, “Verify Phone Number ” অপশনে ক্লিক করুন [4]

ধাপ ৫: Phone Verification

Verify phone number অপশনে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে phone verification এর পেজ খুলে যাবে, নিচে দেওয়া ছবির মত।

Select Your Country : প্রথমে আপনি নিজের country select করুন। ভারতীয় হলে India এবং বাংলাদেশের অধিবাসী হলে Bangladesh সিলেক্ট করুন। [1]

Phone Number: তারপর নিজের Mobile number type করুন। [2]

Get Code: Country select এবং Phone নাম্বার দেওয়ার পরে “Get Code” বাটনে ক্লিক করুন। [3]

ধাপ ৬: Verify Your YouTube Channel

Get code বাটনে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে আপনার দেওয়া মোবাইল নম্বরে 6 Digit এর ভেরিফিকেশন কোড আসবে এবং নিচে দেওয়া ফটো এর মতো পেজ খুলবে সেখানে OTP  বা Verification code দিয়ে “Submit” অপশনে ক্লিক করুন।

Submit অপশনে ক্লিক করলেই আপনার Youtube channel verify হয়ে যাবে এবং একটি মেসেজ দেখাবে “Congratulations! Your phone number is now verified“

এখন আপনার সাথে ইউটিউব এর partnership হয়ে গেছে এবং আপনি ইউটিউবে যেকোনো লম্বা ভিডিও আপলোড করতে পারবেন।

আশাকরি নিয়ম গুলো অনুসরণ করে আপনি খুব সহজে নিজের চ্যানেল ভেরিফাই করতে পারবেন। তারপরও যদি কোন সমস্যা হয় তবে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। যদি পোস্টটি ভালো লেগে থাকে তবে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন, যাতে আপনার বন্ধুরাও জানতে পারে কিভাবে YouTube channel verify korte hoy.

2 thoughts on “কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করবেন – How to verify YouTube Channel

  1. ভাইয়া,, বাংলাদেশ থেকে ফোন নাম্বার দেওয়ার সময় কি Country কোড সহ নাম্বারটা দিবো?? মানে নাম্বারের শুরুতে +৮৮ লিখতে হবে??

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top
x